খেলাধূলা সংবাদ : ২০১০ বিশ্বকাপে  জ্যোতিষী পলে-এর কথাও মনে থাকার কথা। বিশ্বকাপের আগে পল আচমকাই আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠেছিল। বিশ্বকাপে কে জিতবে তা নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী শুরু করেছিল এই অক্টোপাস। অবিশ্বাস্যভাবে সে তাঁর প্রতিটা ভবিষ্যদ্বাণী মিলিয়েও দিচ্ছিল। পলই প্রথম ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল যে, ২০১০ বিশ্বকাপ জিতবে স্পেন। তা ছাড়া জার্মানির জয়ের ব্যাপারেও পলের যাবতীয় ভবিষ্যদ্বাণী অক্ষরে অক্ষরে মিলে গিয়েছিল। এর আগে ২০০৮ ইউরো কাপেও জার্মানির ছ’টা ম্যাচে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল পল। অব্যর্থ ছিল প্রতিটা।

পলের পর ২০১৪ বিশ্বকাপে হাতি, ঘোড়া, কুকুরসহ একাধিক প্রাণীকে দিয়ে বিভিন্ন ম্যাচের ভবিষ্যদ্বাণী করানো হয়েছিল। কিন্তু কেউই সাফল্যের নিরিখে পলের ধারে-কাছে ঘেঁষতে পারেনি। একই ব্যাপার হচ্ছে এবার বিশ্বকাপেও। রাশিয়ায় বল গড়ানোর আগে থেকেই এক বিড়ালকে নিয়ে উন্মাদনা তৈরি হয়। শুরুর দিকে দু-একটা ম্যাচের ভবিষ্যদ্বাণী মিলিয়েও দিয়েছিল সেই বিড়াল। আর্চিলিস নামের সেই বিড়াল কানে শুনতে পায় না। ম্যাচের আগে দুই প্রতিযোগী দেশের পতাকা লাগানো দুটো পাত্রে খেতে দেওয়া হচ্ছিল আর্চিলিসকে। সে যে পাত্রের খাবার খাবে তাঁকেই বিজয়ী হিসাবে আন্দাজ করা হচ্ছিল।

এই নিয়মেই আর্জেন্টিনা-নাইজেরিয়া ম্যাচের আগেও আর্চিলিসকে খেতে দেওয়া হয়েছিল। আর্চিলিস নাইজেরিয়ার পতাকা লাগানো পাত্র থেকে খাবার খায়। ফলে রাশিয়াজুড়ে হইহই পড়ে যায় যে, মেসিদের হয়তো আর নক-আউট পর্বে কোয়ালিফাই করা হল না। কিন্তু আর্চিলিসের সেই ভবিষ্যদ্বাণী মেলেনি। সঙ্গে এটাও আরেকবার প্রমাণ হয়ে গেল, বিশ্বকাপের মঞ্চে এখনও পর্যন্ত অক্টোপাস পলকে ছাপিয়ে যাওয়ার মতো কোনও প্রাণী আসেনি। আসবে কি না সময় বলবে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY