স্টাফ রিপোর্টার :
নেত্রকোনার কেন্দুয়া পারভীন সিরাজ মহিলা কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী জান্নাতুলের উপর নিষ্ঠুর হামলাকারী বখাটে যুবক ইমনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে  বুধবার দুপুরে বিশাল মানবন্ধন কর্মসূচীর পালিত হয়েছে। পারভীন সিরাজ মহিলা কলেজের ডাকে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে এ মানববন্ধন কর্মসূচীতে অংশ নেন, কেন্দুয়া, ডিগ্রী কলেজ, সাবেরুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কেন্দুয়া জয়হরি স্প্রাই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, সায়মা শাহজাহান একাডেমী, আতিক আম্বিয়া দাখিল মাদ্রাসা, আয়শা সালাম ভূঞা একাডেমী ও আলহাজ্ব আতিকুর রহমান একাডেমীর শতশত ছাত্র, ছাত্রী, শিক্ষক, শিক্ষিকা, ছাত্র অভিভাবকসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা। কর্মসূচী চলাকালে ন্যাকক্কারজনক হামলার ঘটনায় মামলাটি দ্রুত বিচারে রেকর্ড করার দাবীতে বক্তব্য রাখেন, কেন্দুয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবির আহমেদ খান রুজেল, উপজেলা কমিউিনিটি পুলিশের সদস্য সচিব আশরাফ উদ্দিন ভূঞা, উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, সাবেরুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুখলেছুর রহমান বাঙ্গালি, কেন্দুয়া ডিগ্রী কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মো: সাইদুর রহমান, পৌরসভার মেয়র মো: আসাদুল হক ভূঞা, উপজেলা নারী ফ্লোরামের সভাপতি, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জাহানারা রোজি ও ভাইস চেয়ারম্যান সাবেক ছাত্রনেতা মো: মোফাজ্জল হোসেন ভূঞা। এ সময় শতশত ছাত্রছাত্রী বখাটে সন্ত্রাসী ইমনের ফাঁসির দাবীতে মুহুর মুহুর শ্লোগান দিতে থাকে। সমাবেশ থেকে বক্তারা বখাটে ইমনকে অতিদ্রুত গ্রেপ্তার করায় পুলিশকে ধন্যবাদ জানান, সেই সঙ্গে মামলাটি দ্রুত বিচার আইনে নেয়া না হলে আরো বড় ধরনের আন্দোলন ও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালনের ঘোষনা দেন। মঙ্গলবার বিকালে কেন্দুয়া পৌরশহরের পূর্বশান্তিবাগ মহল্লার ইমনের ভগ্নিপতি সোহাগের বাসার নিকটে ইমন চা-পাতি দিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে জিন্নাতকে ক্ষতবিক্ষত করে। হামলায় জান্নাতের শরীরে মাথা, মুখ, হাত, পিঠসহ বিভিন্ন স্থানে ১০টিও বেশি আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। আশংকা জনক অবস্থা ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে তার অবস্থা এখনও আংশকাজনক। মঙ্গলবার রাতে তার চিকিৎসার খোজখবর নিতে হাসপাতালে যান ডিআইজি নিবাস চন্দ্র মাঝি ও অতিরিক্ত ডিআইজি ড. আক্কাছ উদ্দিন ভূঞা। এদিকে বুধবার সকালে নেত্রকোনা পুলিশ সুপার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় জনতার দাবীর মুখে যথাযথ আইনে এ মামলা নিয়ে পুলিশের কোন কার্পন্যতা থাকবে না বলে আশ্বাস দেন। মানববন্ধন কর্মসূচী শেষে পারভীন সিরাজ মহিলা কলেজসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে জেলা প্রশাসক বরাবর এককালীন স্মারক লিপিও দেয়া হয়।

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY