মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
বিনা নোটিশে ও সীমানা নির্ধারণ না করেই বৈধ স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সড়ক ও জনপথ বিভাগের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় স্থানীয় প্রেসক্লাবে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্যরা সংবাদ সম্মেলন করে সড়ক ও জনপথ বিভাগের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন।
ময়মনসিংহ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এটিএম কামরুল ইসলামের নেতৃত্বে রোববার থেকে মুক্তাগাছা শহরের অবৈধ স্থাপনা সরানোর কাজ শুরু করে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। রোববার ও সোমবার দুইদিনে সড়কের ওপর গড়ে তোলা সাহেব বাজারসহ মনিরামবাড়ির দুই শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ঘরবাড়ি গুড়িয়ে দেয়। এ ঘটনার প্রতিবাদ করেন মনিরামবাড়ির ক্ষতিগ্রস্থ্য দ্ইু শতাধিক পরিবার। তারা গতকাল স্থানীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, তারা দীর্ঘদিন ধরে বিআরএস নকশা মূলে তাদের বৈধ জায়গায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বসত ঘর তুলে বসবাস করে আসছিলেন। এর পরও সড়ক ও জনপথ বিভাগ বিনা নোটিশে সীমানা নির্ধারণ না করেই সড়কের পাশের দুই শতাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং বসতঘর গুঁড়িয়ে দেয়। তারা বলেন, দুই শতাধিক পরিবার এখন পথে বসেছেন। এমনকি তাদের ঘরবাড়ির আসবাবপত্র ট্রাকে করে উঠিয়ে নেয় সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এতে তাদের প্রায় কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার সড়ক ও জনপথ বিভাগের কাছে ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শহরের মনিরামবাড়ির বাসিন্দা মুক্তাগাছা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ হেলাল উদ্দিন সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বাবুল, সাবেক প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেন তালুকদার, শফিকুর রহমান, সুরুজ আলী, হারেজ আলী ভুট্রো, মোসলেম উদ্দিন, সেউলি আক্তার, মতিউর রহমান খোকন, মোশাররফ হোসেন প্রমূখ।

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY