মোঃ ইকরাম হোসেন খান মামুন (ষ্টাফ রিপোর্টার)ঃময়মনসিংহের গৌরীপুর ৩ সংসদীয় আসনে আগামী ১১ তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবারও মনোনয়ন প্রত্যাশী বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব এড.নাজিম উদ্দিন আহমেদ এম,পি।অনুসন্ধানে জানাযায়,নাজিম উদ্দিন আহমেদ এম,পি ছাত্র জীবন থেকে যৌবনের সবটুকু দলের জন্য উজাড় করে দিয়েছেন।তিনি দেশ স্বাধীন হওয়ার আগে পাকিস্হান শাসন আমলে বৃহত্তর ময়মনসিংহের ছাত্রলীগের সভাপতির দ্বায়িত্ব পালন করেন।উনার সাধারন সম্পাদক হিসাবে সহযোদ্ধা ছিলেন মাননীয় জন প্রশাসন মন্ত্রী জনাব সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম এমপি মহোদয়।পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুর দেশ স্বাধীন করার ডাকে সাড়া দিয়ে জীবন যৌবন বাজি রেখে ঝাপিয়ে পড়েন মহান মুক্তিযোদ্ধে।৩০ লক্ষ শহীদ ও ২ লক্ষ মা,বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতার পর বীর সেনানী এড.নাজিম উদ্দিন আহম্মেদ এমপি দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তিনি বঙ্গবন্ধুর আর্দশকে বুকে ধারন করে ছাত্রলীগ থেকে ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে প্রবেশ করেন।বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত ব্যান গার্ড হিসাবে দলকে সংগঠিত ও নেত্রীর ডাকা সকল আন্দোলন, লড়াই,সংগ্রামে অগ্রনী ভূমিকা রেখেছেন।ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি,সাধারন সম্পাদক ও সাংগঠনিকের দ্বায়িত্ব পালন করেছেন।যে,কারনে উনাকে অনেক অত্যাচার, নির্যাতন সহ্য করতে হয়েছে বিভিন্ন সময়ে।গৌরীপুরের গন মানুষের নেতা প্রয়াত এমপি ক্যাপ্টেন মজিব সাহেবের হঠ্যাৎ মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হলে  গত উপ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ এড.নাজিম উদ্দিন আহমেদকে প্রবীন আওয়ামীলীগ রাজনৈতিক নেতা হিসাবে উনাকে মনোনয়ন দেন।তিনি উপ নির্বাচনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে আসনটি পুনরায় উপহার দেন।শুরু করেন নতুন জীবন।চ্যালেঞ্চ হিসাবে দ্বায়িত্ব হয়ে দাঁড়ায় প্রয়াত এমপি মজিব সাহেবের অসমাপ্ত কাজ এগিয়ে নেয়া।তিনি জননেত্রীর ক্ষুদা ও দারিদ্র মুক্ত উন্নয়নশীল বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বংলা গড়ার লক্ষে কাজ করে যাচ্ছেন।এই কঠিন দ্বায়িত্ব কাধে নিয়ে তিনি দিনের পর দিন রাতের পর রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন জাতির পিতার সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে।উন্নয়নের অগ্রগতি পর্যদেক্ষন ও সরকারের সার্বিক উন্নয়নের বার্তা সকল শ্রেনী পেশার ব্যক্তি বর্গের নিকট পৌছে দিতে নিরলস ভাবে  রাজনৈতিক,সামাজিক,সাংগঠনিক ও তৃন মূলের আম জনতার সাথে উঠান বৈঠক করে জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সার্বিক উন্নয়নের বার্তা ও আগামী দিনের পরিকল্পনা পৌছে দিচ্ছেন।আবারও মনোনয়ন প্রত্যাশী এড.নাজিম উদ্দিন আহমেদ এমপি’র সার্বিক কর্মকান্ড নিয়ে কথা হয় আওয়ামীলীগ ও তার সকল অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের তৃন মূলের নেতা কর্মীদের সাথে।উনার জানান,আমাদের সকলেরই এমপি সাহেবের উপর আস্তা রয়েছে।আগামী দিনেও একমাত্র উনাকে দিয়েই এই আসনটি ধরে রাখা সম্ভব।তবে বর্তমানে কিছু নব্য আঃলীগ মনোনয়ন প্রত্যাশী দলকে দ্বিখন্ডিত করার হীন চেষ্টা করছে।তারা নিজেদের আঃলীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসাবে দাবি করলেও কাজ করে যাচ্ছেন দলকে পাশ কাটিয়ে কোন এক অজানা কারনে।তারা আওয়ামীলীগের দলীয় কর্মসূচীতে যোগদান না করে অতীতে দলের সিদ্বান্ত অমান্য করে হরিন মার্কা নির্বাচন,বঙ্গবন্ধু পরিষদ,বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন,প্রজন্মলীগ,বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের মত বিভিন্ন ব্যাংঙের ছাতার মত গড়ে ওঠা সংগঠনের নামে যার যার মত দলকে বৃদ্ধাংঙ্গুল দেখিয়ে ব্যক্তিগত ভাবে প্রচারনা চালিয়ে জনগনকে বিব্রান্ত কর তথ্য দিয়ে এমপি ও দলের ভাব মূর্তি নষ্ট করছে।যা কখনই দলের কাম্য হতে পারে না।তবে ষরযন্ত্রকারীরা যতই শক্তিশালী হউক না কেন আমরা দলের সকলে ঐক্য বদ্ধ আছি, থাকব এবং এড.নাজিম উদ্দিন আহম্মেদ এমপির নেতৃত্বে আমরা সাংগঠনিক সকল কাজ করে যাচ্ছি এবং যাব।আমরা আশাকরি আগামী নির্বাচনেও দল এড.নাজিম উদ্দিন আহম্মেদ এমপি মহোদয়কে আবারও মনোনয়ন দিবেন এবং উনাকে আমরা আবারও বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী করব ইনশাল্লাহ্।উনাকে বিজয়ী করে জননেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এই আসনটি পুনরায় উপহার দিবই দিব।আসন্ন ১১ তম সংসদ নির্বাচন নিয়ে এড.নাজিম উদ্দিন আহমেদ এমপি মহোদয়ের নিকট মনোনয়ন পাওয়ার বিষয়ে তিনি কতটুকু আশাবাদি জানতে চাইলে তিনি জানান,আমি মনোনয়ের ব্যাপারে ইনশাল্লাহ্ শত ভাগ আশাবাদি।সেই লক্ষেই আমি কাজ করে যাচ্ছি।দলের সকল ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা কর্মীরা ঐক্য বদ্ধ আছে।আমরা উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রেখেই নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি। বিদ্যুৎ,রাস্তাঘাট, ব্রীজ কাল ভার্ড,স্কুল,কলেজ সহ সর্ব ক্ষেত্রেই ব্যাপক উন্নয়ন করেছি নেত্রীর সার্বিক সহযেগীতায় দলের সকল নেতা কর্মীদের সাথে নিয়ে।দলের নেতা,কর্মী ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আমার পূর্ন আস্তা রয়েছে।আসন্ন ১১ তম সংসদ নির্বাচনে আমি আঃলীগের দলীয় মনোনয়নের পাওয়ার ব্যাপারে শত ভাগ আশাবাদি।আমার সার্বিক কর্মকান্ড ও দলের  ঐক্যের কারনে কোন ষড়যন্ত্রই আমাকে আটকাতে পারবে না ইনশাল্লাহ্।তিনি আরও বলেন,তারপরও নেত্রী যাকেই মনোনয়ন দিবেন দলের বৃহৎ স্বার্থে আমি তাকেই নির্বাচিত করার জন্য নিজেকে উজাড় করে দিয়ে মাননীয় নেত্রীকে আসনটি উপহার দিবই দিব।তাই আমি আওয়ামীলীগের সকল মনোনয়ন প্রত্যাশীদের প্রতি আহবান জানাই দলের বৃহৎ স্বার্থে আসুন আমরা সকল ভুঁই ফুর সংগঠনকে চিহৃিত করে এদের ব্যতিরেখে মূল আওয়ামীলীগের ব্যানারে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দল ও দেশের বৃহৎ স্বার্থে কাজ করি এবং আসনটি অতীতের ন্যায় ধরে রেখে মাননীয় নেত্রীকে উপহার দেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে।
পরবর্তী প্রতিবেদন  অন্য কোন মনোনয়ন প্রত্যাশীর।দৈনিক নবকল্যান পড়ুন।বস্তুনিষ্ট সংবাদ জানুন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY