ফিচার সংবাদ :  বাঙালির ঐতিহ্যবাহী রসনা বিলাসে একটি উপাদেয় সংযোজন আচার। স্বভাবত এদেশের নারীরা আচার তৈরি শেখেন তার মায়ের কাছ থেকে। মা, তার মায়ের কাছ থেকে। অভিজ্ঞ হাতে তৈরি আচারের স্বাদ অতুলনীয়। তাই নাতি-নাতনিদের পছন্দ নানু’র হাতে তৈরি আচার।

আম, জলপাই, বরইসহ নানা মৌসুমি ফলে তৈরি হয় আচার। আচারের লোভনীয় স্বাদ নিমিষেই আপনাকে আকর্ষণ করবে। জিভে জল আসাটাও এখানে খুব সাধারণ একটা বিষয়।

আজকাল এসব আচারের স্বাদ অনেকটা ভুলতে বসেছে নগরের মানুষেরা। শহুরে জীবনে হাতে তৈরি আচারের স্বাদ পাওয়া অনেকটা অসম্ভব। তাই বাধ্য হয়ে ছুটতে হয় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের তৈরি আচারের ওপর। কিন্তু, সেই স্বাদ কি আছে? মা কিংবা নানির হাতে তৈরি আচারের স্বাদ কি পাচ্ছেন? হয়ত না।

নানির হাতে তৈরি সেসব আচারের পসরা সাজিয়ে বসেছে ‘প্রাইমোকম’। রাজধানীর ধানমন্ডি ২৭ নম্বরস্থ উইমেন ভলান্টারি অ্যাসোসিয়েশন অডিটোরিয়ামে চলছে তিন দিনব্যাপী ঈদ উৎসব। নারীকেন্দ্রিক এই উৎসবে পাওয়া যাচ্ছে নারীদের প্রয়োজনীয় প্রায় সবকিছু। পোশাক, গহনা, গৃহস্থালি সামগ্রী, ঘর সাজানোর উপকরণ, খাবারের সঙ্গে স্থান পেয়েছে আচার। নাম, নানু’স আচার। নানুর হাতে তৈরি আচারের স্বাদ ও গন্ধমাখা প্রায় ৮-১০ ধরনের আচার পাওয়া যাচ্ছে।

 

আয়োজক প্রতিষ্ঠান ‘প্রাইমোকম’ এর সিইও এবং নানু’স আচার স্টলটির মালিক সামুসুন্নাহার তারেক ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আচারটা এদেশের নারীরাই তৈরি করেন। আর প্রতিটি মেয়ে তার মায়ের থেকে, তার মা, তার মায়ের থেকে। এভাবেই আচার তৈরি শিখে আসছে। এটা একটা চেইন।’

‘যেহেতু, আজকাল সবাই বেশ ব্যস্ত, তাই আমরাই কিছু আচার তৈরি করেছি। সবগুলো আচারই হোম মেইড। সেই মা, খালা, নানিদের পদ্ধতিতে। আশা করছি, সবাই সেই পুরনো স্বাদটি ফিরে পাবেন।’

তিন দিনব্যাপী আয়োজনের দ্বিতীয় দিন বুধবার বেশ জমজমাট ‘প্রাইমোকম’- এর ঈদ আয়োজন। হোম মেইড খাবার পোশাকের পাশাপাশি ক্রেতাদের বাড়তি চাহিদা দেখা গেল ভারতীয় পোশাকের প্রতি। ৩১ মে পর্যন্ত চলবে এবারের মেলা।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY