আন্তর্জাতিক সংবাদ :  অনলাইনে গত বছর এক ছেলের সাথে পরিচয় হয় জ্যাকেলিনের (৩১)। পরিচয়ের পর এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

এরপর বেশ কিছুদিন ভালোই চলছিলো তাদের। এরই এক পর্যায়ে তারা দেখা করেন। আর দেখা করার পর থেকেই ছেলেটির কাছে দুর্বিষহ হয়ে ওঠেন জ্যাকেলিন।

দেখা হওয়ার পর থেকে ছেলেটি কোথায় যাচ্ছে, কি করছে এ ধরণের হাজারো মেসেজ দেয়ার পর কোনো জবাব না পেয়ে অসংখ্যবার ফোন দেয় জ্যাকেলিন।

আর অবশেষে দীর্ঘ সময় পরেও প্রেমিকের কোনো খোঁজ না পেয়ে ছেলেটিকে টানা ৬৫ হাজার মেসেজ দেয় জ্যাকেলিন।

আর এরপর ছেলেটিকে উত্যক্ত, মানসিক অত্যাচার ও খুনের হুমকি দেয়ার অপরাধে জ্যাকেলিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনার পুলিশ জানায়, জ্যাকেলিন ক্লেয়ার অ্যাডেস মিয়ামির বাসিন্দা। সে দৈনিক তার প্রেমিককে ৫০০ টি করে এসএমএস পাঠাতেন। সব এসএমএসের উত্তর না পেলে হুমকিও দিতেন। যেমন: ‘তোমার রক্ত চাই। আমি তা দিয়ে গোসল করব।’ সব মিলেয়ে ছেলেটিকে ৬৫ হাজার মেসেজ পাঠিয়েছে জ্যাকেলিন।

এ ছাড়া ৩০ এপ্রিল ছেলেটিকে জ্যাকেলিন একটি এসএমএস পাঠিয়েছিল। তাতে লেখা, ‘আমাকে ছেড়ে যাওয়ার চেষ্টাও করো না। আমি তোমাকে খুন করে ফেলব। আমি খুনি হতে চাইছি না।’ এরপরের এসএমএসেই লিখেছেন, ‘আমার আশা তুমি মরবে। থুতনি থেঁতলে গিয়েছে তোমার, আমি দেখতে পাচ্ছি।’

কারাগারে থাকা অবস্থায় এক ইন্টারভিউতে জ্যাকেলিন বলেন, ‘আমি ভেবেছিলাম, আমার জীবনসঙ্গী পেয়ে গিয়েছি। আমরা বিয়ে করতাম। কিন্তু যা ঘটল।’

পুলিশ জ্যাকেলিনকে প্রশ্ন করেন, আপনার কি মনে হয় না এটা বাড়াবাড়ি? উত্তরে তিনি বলেন, ‘ভালোবাসা একটি বাড়াবাড়ি ব্যাপার বলেই আমি মনে করি।’

আপনি কি মনে করছেন না, আপনি বিপজ্জনক অবস্থায় আছেন? এই প্রশ্নের উত্তরে জ্যাকেলিন বলেন, ‘না। আমি শুধু তাকে ভালোবাসতে চাই। ও যদি আমায় পছন্দ না করে, তাহলে বাড়ি ফিরে যাব। আবার প্রাক্তন বয়ফ্রেন্ডকেই ভালোবাসব।’ -সূত্র: ডেইলি মেইল

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY