মোঃইকরাম হোসেন খান মামুন(ষ্টাফ রিপোর্টার)ঃজামাত,বি,এন,পি’র এজেন্ট ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আলমগীরের সার্বিক ঘুষ ও দূর্নীতির ফলে সরকারের নেয়া সমাজের কল্যানে বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড ব্যাপক ভাবে বাধা গ্রস্হ হচ্ছে।পাশাপাশি হ্রাস পাচ্ছে সরকারের জনপ্রিয়তাও।গৌরীপুর উপজেলায় সরকারের গ্রামীন অনকাঠামো উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়নে অনুসন্ধানে জানাযায়,জামাত,বি,এন,পি’র এজেন্ট গৌরীপুরের পি,আই,ও আলমগীর সুপরিকল্পিত ভাবে কিছু অসৎ সরকারী কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধির যোগসাজসে সরকারের গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়ন ও অতি দরিদ্র জন গোষ্টির কষ্ট লাগবে বরাদ্ধ সকল অনুদান ও কর্মসূচীর কোটি কোটি টাকা আত্নসাৎ করে আসছে দীর্ঘ্য দিন ধরে।ফলে সরকারের এত ব্যাপক পরিমান উন্নয়ন কর্মসূচীর বরাদ্ধের কোটি কোটি টাকার প্রায় সবটুকুই চলে যাচ্ছে প্রকৃত ভূক্তভূগীদের পরিবর্তে পি,আই,ও গংদের পকেটে।এতে যেমন জনগনের নিকট প্রশ্ন বিদ্ধ হচ্ছে সরকার,তেমনি জনপ্রিয়তায়ও নামছে ধস।পি,আই,ও আলমগীর ১৭/১৮ ইং অর্থ বছরে সারা উপজেলায় ব্যাপক দূর্নীতি ও ঘুষ বানিজ্য করে কোটি কোটি টাকা লুটপাট করে সরকারের ভাবমূর্তী নষ্ট ও দূর্নীতিবাজ সরকার হিসাবে সরকারকে জনতার আদালতে দাঁড় করিয়েছে।পি,আই,ও আলমগীর ১৭/১৮ ইং অর্থ বছরের ২ ধাপের কর্মসৃজন কর্মসূচীর প্রায় ৫ কোটি ৯২ লক্ষ টাকা শুধু মাত্র কাগজে কলমে সৃজন দেখিয়ে আত্নসাৎ করেছে।পি,আই,ও আলমগীরের কর্মসৃজন কর্মসূচীর টাকা আত্নসাৎ’র বাস্তব প্রমান পাওয়া যায় একজন তদারকি কর্মকর্তা ও ব্যাংক ম্যানেজারের সাথে কথা বলে।জনৈক তদারকি কর্মকর্তা জানান,কর্মসৃজন মানেই তো পি,আই,ও গংদের দূর্নীতি আর লুটপাট।আমি নিজেই জানিনা আমার দ্বায়িত্বে থাকা ইউনিয়নে কবে কাজ শুরু ও শেষ হয়েছে।পরবর্তীতে আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জীবনের হুমকি দেখিয়ে পি,আই,ও গংরা তাদের সৃজিত সকল কাগজ পত্রে আমার স্বাক্ষর করিয়ে নেয়। তিনি উল্টো প্রশ্ন করেন,এখন আপনারাই বলুন কর্মসৃজন মানে পি,আই,ও গংদের লুটপাট নয় কি?সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড বাধা গ্রস্হ নয় কি?সরকারের জনপ্রিয়তা হ্রাস পাচ্ছে না কি?অসহায়ের মত কলতাপাড়া কৃষি ব্যাংক ম্যানেজার বলেন,কর্মসৃজন বাস্তবায়ন নিয়ে আমার সাথে কথা বলে লাভ নেই।আমরা অসহায়,নির্যাতিত ও লাঞ্চিত উক্ত কর্মসূচী বাস্তবায়ন করতে গিয়ে।আমি চেয়ে ছিলাম প্রত্যেক শ্রমিক সে নিজে ব্যাংকে এসে তার টাকা সে নিজেই উত্তোলন করুক।কিন্তু আমরা পারি নি।টাকা তুলে দিতে হয়েছে পি,আই,ও গংদের হাতে সম্পূর্ন অবৈধ্য পন্হায়।ভাল করতে গিয়ে হয়েছি পি,আই,ও গংদের হাতে লাঞ্চিত ও নির্যাতিত।পরিত্রানে সাহায্য চেয়েছি উর্ধ্বতন সকল কর্তা ব্যক্তিদের।কিন্তু কারও সামান্য সমবেদনা টুকু পায়নি।এই হল সরকারের সার্বিক উন্নয়ন কর্মকান্ডের বাস্তবায়ন!যেখানে আমার জীবনেরই নিরাপত্তা নেই।কথা হয় সরকার দলের  অতি দরিদ্র শ্রেনীর কর্মীদের সাথে।তারা জানান,শুনেছি তালিকায় আমাদের অনেকেরই নাম আছে।কিন্তু আমরা ব্যাংকে যায়নি।আর টাকা তুলার প্রশ্নই আসে না।টাকা তুলে আত্নসাৎ করেছে পি,আই,ও গংরা।আগামীতে নৌকায় ভোট দিতে আমাদের আর প্রয়োজন হবে না!!!কারন,লুটেলার দল পি,আই,ও গংরা আছে না?

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY