স্টাফ রিপোর্টার : ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলা সাব রেজিস্ট্রী অফিসের সাব রেজিস্ট্রার জাহাঙ্গীর আলমের অনিয়ম, দুর্নীতি, ঘুষ বাণিজ্য নিয়ন্ত্রণহীন ভাবে বেড়েই চলেছে। সাব রেজিস্ট্রার জাহাঙ্গীর আলম ভালুকা সাব রেজিস্ট্রী অফিসে যোগদান করার পর থেকে তার দুর্নীতি, ঘুষ বাণিজ্য নিয়ে দৈনিক নবকল্যাণ সহ একাধিক পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়েছে। এত কিছুর পরেও জেলা রেজিস্ট্রার অদ্যাবধি চোখে পড়ার মতো তেমন কোনো ভূমিকা গ্রহণ করেন নাই। জনসাধারণের অভিযোগ জেলা রেজিস্ট্রারের প্রশ্রয়ে কি এসব হচ্ছে?
সুত্র জানায়, সাব রেজিস্ট্রার জাহাঙ্গীর আলম, অফিস সহকারী মিজানুর রহমান তাদের গঠিত শক্তিশালী সিন্ডিকেট চক্রের মাধ্যমে জমির ক্রেতা বিক্রেতাদের কাছ থেকে সেরেস্তার কথা বলে বিনা রশিদে দলিল প্রতি ৩ হাজার টাকা অতিরিক্ত আদায় করা হচ্ছে। জমির শ্রেণি পরিবর্তন করে সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিয়ে এই সিন্ডিকেট চক্র নিজেদের আখের গোছাতে সর্বদাই ব্যস্ত। সাব রেজিস্ট্রার জাহাঙ্গীর আলম বন ভূমি ও সরকারী খাস জমি ভূমি খেকোদের কাছে নিয়ম-বহির্ভূতভাবে হস্তান্তর করছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। আর ও আর, বি আর এস, জমির শ্রেণি পরিবর্তন, বন ভূমি ও খাস জমি হস্তান্তর সহ নানা অভিযোগে অভিযুক্ত সাব রেজিস্ট্রার জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে জরুরী ভিত্তিতে সুষ্ঠ তদন্ত পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী উপজেলাবাসীর।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY