লাইফস্টাইল সংবাদ : স্বামী-স্ত্রী সম্পর্কের – জীবনে চলার পথে প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে কত কিছুই তো শেয়ার করি আমরা। বিয়ের পর নিজের দাম্পত্য জীবনের খুঁটিনাটি বলতেও ছাড়ি না। কিন্তু কখনো কি ভেবেছেন, এসব বলা ঠিক হচ্ছে কিনা? এমন কিছু কথা আছে, যেগুলো বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করলে দাম্পত্যকলহ দেখা দিতে পারে।

 

জেনে নেয়া যাক সেগুলো:

বিরক্তিকর অভ্যাস: প্রতিটি মানুষেরই কিছু বিরক্তিকর অভ্যাস থাকে। আপনার আছে, আমার আছে, আপনার জীবন সঙ্গীরও আছে। কিন্তু এটার কথা ঘটা করে বন্ধুদের জানাবার কোনো দরকার নেই। সমস্যা হলে নিজের জীবন সঙ্গীর সঙ্গেই আলোচনা করুন। বন্ধুদের বললেন আর বন্ধু ঠাট্টার ছলে আপনার জীবনসঙ্গীর সামনে বলে দিলেন, এর চাইতে বিব্রতকর আর কিছু হতে পারে না।

 

শ্বশুর বাড়ির বদনাম: শ্বশুর বাড়ির বিষয়ে ‘আপনার ভালো লাগেনি’ এমন নেতিবাচক অভিজ্ঞতা কোনো বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করবেন না। বিষয়টি আপনার সঙ্গীনি জানতে পারলে দাম্পত্যকলহ দেখা দিবে। বরং এসব কথা পরিবারের সঙ্গে শেয়ার করুন।

 

বেডরুমের গল্প: সঙ্গীর সঙ্গে যৌন জীবনের খুঁটিনাটি অনেকেই বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে শেয়ার করে থাকেন। এই কাজটি ভুলেও করবেন না। এতে কেবল নিজের প্রিয় মানুষটিকে ছোট করা হয়। আর এতে আপনারও সম্মান বাড়ে না। বরং এর দ্বারা সম্ভাব্য সমস্যা আপনাকে মানসিক অশান্তিতে ফেলে দিবে।

 

সঙ্গীর অতীতের গল্প: সকলেরই অতীত থাকে। কারো হয়তো একটু বেশি তিক্ত, কারো হয়তো কম। সঙ্গীর অতীতের কাহিনী আপনি জানলেও সেটা বন্ধুদের সঙ্গে শেয়ার করতে যাবেন না। এই বিষয়গুলো খুব ব্যক্তিগত হয়ে থাকে।

 

কোন ব্যর্থতার কথা: একটি সম্পর্কে কিছু না কিছু ব্যর্থতা থেকেই যায়। হয়তো আপনার সঙ্গীর সৌন্দর্য নিয়ে আপনার মনে কষ্ট আছে, কিংবা আপনাদের আর্থিক অবস্থা নিয়ে আফসোস আছে। বিষয় যাই হোক না কেন, সঙ্গীর যে ব্যাপারটিই নিয়েই আপনি অতৃপ্তিতে ভুগে থাকেন না কেন, সেটা বন্ধুকে কখনো বলতে যাবেন না। সঙ্গী এসব জানতে পারলে মনে কষ্ট তো পাবেনই, বিষয়টা সম্পর্ক ভাঙার দিকেও চলে যেতে পারে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY