খেলাধূলা  সংবাদ : এক ধাক্কায় বিশ্বকাপের উষ্ণতার পারদ কয়েক ধাপ বেড়েছে মস্কোতে। গতকয়েক দিন ধরে রাশিয়ার রাস্তায় রাস্তায় শুরু হয়েছে ফুটবল ভক্তদের আনাগোনা। সেখানে রাশিয়ানদের আধিপত্য অনেকটাই যেন ম্লান করে দিয়েছেন বিদেশি সমর্থকরা।

মস্কোর রাস্তায় দেখা গেল প্রচুর বিদেশি সমর্থকদের। যাদের মধ্যে আর্জেন্টিনা, জার্মানি এবং পর্তুগাল সমর্থকদের সংখ্যা বেশি। এবং সমর্থকদের মধ্যে আবার প্রচুর নারীও রয়েছেন।

এবারের বিশ্বকাপে ব্রাজিল তাদের বেসক্যাম্প মস্কোয় করেনি। তাদের বেসক্যাম্প সোচিতে। মস্কোতে বেসক্যাম্প করেছে গতবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানি, লিওনেল মেসির আর্জেন্টিনা এবং ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোরর পর্তুগাল। এই তিন দেশের সমর্থকরাই মস্কোয় বিশ্বকাপের উত্তেজনা অনেকটাই বাড়িয়ে দিয়েছেন। এই তিন দেশের সুন্দরী নারী সমর্থকরা উপস্থিত হলেও জার্মানি, আর্জেন্টিনা এবং পর্তুগালের ফুটবল দল এখনও মস্কোতে পা রাখেনি।

মেসি-রোনালদোরা উপস্থিত না হলেও তাদের সমর্থকরা কিন্তু মস্কোয় পা রেখেই বিশ্বযুদ্ধের দামামা কার্যত বাজিয়ে দিলেন। তবে ইতিমধ্যেই জার্মানির কোচ জোয়াকিম লো তাদের দলের ফুটবলারদের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন।

তিনি পরিষ্কার বলে দিয়েছেন, বিশ্বকাপ চলাকালে কোনও রকম নারী সঙ্গ নিষিদ্ধ। তবে পর্তুগাল বা আর্জেন্টিনা শিবির থেকে এই ধরনের কোনও নিষেধাজ্ঞা আসেনি। তবে এই সমস্ত নিষেধাজ্ঞা নিয়ে নারী সমর্থকদের মধ্যে কোনও মাথাব্যথা নেই।

শোনা যাচ্ছে, এই সমস্ত সুন্দরী নারী সমর্থকদের মধ্যে অনেকেই আবার ফুটবলারদের বান্ধবী। ফলে যতই নিষেধাজ্ঞা থাকুক, তা তুড়ি মেরে উড়িয়ে দিতে কতক্ষণ। এখন দেখার বিষয়, জার্মানির টিম ম্যানেজমেন্ট কোচের নিষেধাজ্ঞা কতটা পালন করতে পারে।

এদিকে, বিশ্বকাপের উদ্বোধনের প্রস্তুতিও চলছে জোর কদমে। রাশিয়ার পুতিন সরকার বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্র প্রধানদের আমন্ত্রণ জানিয়েছে উদ্বোধনে উপস্থিত হওয়ার জন্য। তাদের মধ্যে অনেকেই উদ্বোধনে উপস্থিত থাকার ব্যাপারে সম্মতি দিয়েছেন। যেমন চীনের রাষ্ট্রপ্রধান জানিয়ে দিয়েছেন তিনি আসছেন। বিশ্বকাপ উপলক্ষে মস্কোতে প্রচুর স্যুভেনিয়ার শপ তৈরি হয়েছে। যেখানে বিক্রি শুরু হয়েছে বিশ্বকাপের নানা ধরনের মেমেন্টো।

বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর মধ্যে বেশিরভাগই রাশিয়ায় এসে পৌঁছায়নি। তবে এরই মধ্যে পৌঁছেছে ইরান। উদ্বোধনের প্রস্তুতি নিয়েও তৈরি হয়েছে উন্মাদনা। বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা আসবেন। তাই নিরাপত্তা আরও কঠোর করা হয়েছে। চারিদিকে রাশিয়ান নিরাপত্তারক্ষীরা টহল দিচ্ছেন। যাতে কোনও রকম সমস্যা তৈরি না হয়।

নাইজেরিয়াসহ বেশ কিছু টিম ইতিমধ্যে খেলোয়াড়দের সঙ্গে রুশ নারীদের দেখা-সাক্ষাৎ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। কিন্তু দেশের বহু সুন্দরী একে একে মস্কোয় আসছেন। খেলার অবসরে জার্মান বা পর্তুগালের খেলোয়াড়রা এদিন রাশিয়ায় পা-রাখা বান্ধবীদের সঙ্গে যে মেলামেশা করবেনই তা বলাই বাহুল্য।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY