জাতীয় সংবাদ : নিহত রূপার ধর্ষক ও হত্যাকারীদের পক্ষে মামলায় না লড়তে আইনজীবীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

তিনি বলেন, তাড়াশের দরিদ্র ঘরের মেয়ে রূপা জীবিকা নির্বাহের জন্য সংগ্রামী জীবনকে বেছে নিয়েছিল। তার ওপরই নির্ভর করত পরিবারটি। সম্ভাবনাময় এ তরুণীকে ধর্ষণের পর নৃশংসভাবে যারা খুন করেছে তারা পশুর চাইতেও নিকৃষ্ট। এদের হয়ে আইনি লড়াই না করতে তিনি সব আইনজীবীর প্রতি অনুরোধ জানান।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি রূপার ছোট বোনকে সরকারি চাকরি দেয়ার প্রতিশ্রুতি পুনর্ব্যক্ত করে বলেন, ঈদের আগের দিন আমি তার বাসায় গিয়ে দেখেছি একটি পাশবিক ঘটনা কীভাবে একটি পরিবারের ঈদের আমেজকে তছনছ করে দিতে পারে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারের মেয়াদের শেষ বছরে স্বাস্থ্যখাতের দৃশ্যমান সাফল্য অর্জনে সংশ্লিষ্ট সবাইকে আরও নিষ্ঠা ও দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করতে হবে। সরকারের রাজনৈতিক অঙ্গীকার পূরণে চলমান অর্থবছর খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। এ অর্থবছর গৃহীত প্রকল্পগুলো দ্রুত ও স্বচ্ছতার সঙ্গে বাস্তবায়ন করে স্বাস্থ্যখাতে সরকারের প্রতিশ্রুতি পূরণে কাজ করতে সবার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

ঈদুল আজহার ছুটির সময় হাসপাতাল এবং বন্যার্ত এলাকায় চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম অব্যাহত রাখায় চিকিৎসক ও নার্সদের প্রতি ধন্যবাদ জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচির সফল বাস্তবায়নে চিকিৎসক, নার্স ও হাসপাতালের কর্মচারীদের ঐকান্তিক দায়িত্ববোধ ব্যাপক অবদান রাখতে পারে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব সিরাজুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মোস্তাফিজুর রহমান, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইউনিটের মহাপরিচালক মো. আসাদুল ইসলামসহ মন্ত্রণালয় ও অধিদফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY