স্টাফ রিপোর্টার
দৈনিক ময়মনসিংহ প্রতিদিনের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সাংবাদিক সংগঠন বসকো’র মহাসচিব মোঃ খায়রুল আলম রফিক এর বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক ড. সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস ও পুলিশ সুপার মোঃ শাহ আবিদ হোসেন স্মারকলিপি গ্রহণ করেন। গতকাল বুধবার (২৯ আগস্ট) ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব ও বাংলাদেশ অনলাইন সাংবাদিক কল্যাণ ইউনিয়ন (বসকো)’র ব্যানারে ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন শেষে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। স্মারকলিপিতে ময়মনসিংহ প্রতিদিনের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলাটিকে মিথ্যা ও হয়রানিমূলক বলে উল্লেখ্য করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয় এবং অবিলম্বে মামলাটি প্রত্যাহারের দাবী জানানো হয়। মানববন্ধনে ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব সাংগঠনিক সম্পাদক বিল্লাল হোসেন প্রান্তর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন দৈনিক মাটি ও মানুষ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ও ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব সিনিয়র সহ সভাপতি আলহাজ্ব আশিক চৌধুরী, ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব সহ-সভাপতি ও দৈনিক আলোকিত ময়মনসিংহ সম্পাদক প্রদীপ ভৌমিক, দৈনিক শ্বাশত বাংলা পত্রিকার প্রকাশক-সম্পাদক ও ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব সহ সভাপতি আজগর হোসেন রবিন। দৈনিক উর্মী বাংলা পত্রিকার সম্পাদক সুমন ভেীমিক, দৈনিক নবকল্যান পত্রিকার সম্পাদক নবদ্বীপ সাহা। ময়মনসিংহ প্রতিদিন পত্রিকার চীফ রিপোর্টার মোমিন তালুকদার, জেনারেল ম্যানাজার এনামুল হক ছোটন। অপরাধসংবাদ.কম চীফ রিপোর্টার মতিউর রহমান। সিনিয়র রিপোর্টার কামরুজ্জামান মিনহাজ ও হাসিম আহমেদ, স্টাফ রিপোর্টার আনিস আহমেদ, নেত্রকোনা আঞ্চলিক প্রতিনিধি এস.এম.রফিক, গফরগাঁও আঞ্চলিক প্রতিনিধি মাজহারুল হক, নান্দাইল স্টাফ রিপোর্টার মজিবর রহমান ফয়সাল, ঝিনাইগাতী স্টাফ রিপোর্টার জাহিদুল হক মনির, ভালুকা প্রতিনিধি মোঃ মমিনুল ইসলাম, পূর্বধলা প্রতিনিধি এমদাদুল হক, নকলা প্রতিনিধি নাসির আহমেদ, পাগলা থানা প্রতিনিধি আরিফুল ইসলাম, জাককানইবি সংবাদদাতা হিমেল আহমেদ প্রমূখ। মানববন্ধনে ময়মনসিংহ বিভাগের শেরপুর, জামালপুর, নেত্রকোনাসহ ময়মনসিংহ উপজেলায় শাখা প্রেসক্লাব ও বিভিন্ন গণমাধ্যমে কর্মরত প্রায় ৩ শতাধিক সাংবাদিক,বিভিন্ন জেলা ও উপজেলার প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন ইলেক্টোনিক মিডয়ার সাংবাদিকরা উপ¯ি’ত ছিলেন। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে সাংবাদিক খায়রুল আলম রফিকের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও অধিকরত সুষ্টু তদন্ত সাপেক্ষে ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে ব্যব¯’া গ্রহণ করে সুশাসন প্রতিষ্ঠার দাবী জানান। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ঠিকাদার হাসেম আলীর দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করায় তিনি বাদী হয়ে মমেক হাসপাতালের রান্না ঘর ও অফিস রুম ভাংচুর করার অভিযোগ এনে ময়মনসিংহ প্রতিদিন সম্পাদক মোঃ খায়রুল আলম রফিকের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমুলকভাবে দ্রুত বিচার আইনে একটি মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। এদিকে পুলিশ ইনভিস্টেকেশন ব্যুারো (পিবিআই) ময়মনসিংহ আঞ্চলিক কার্যালয়ের এডিশনার এসপি আবু বকর সিদ্দিক ও এসআই আবু সালেক অভিযোগটির সুষ্ঠু তদন্ত না করেই বাদী পক্ষের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে মনগড়্ াপ্রতিবেদন বিজ্ঞ আদালতে দাখিল করেন। যা নিয়ে খোদ ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দায়িত্বশীল একাধিক কর্মকর্তা বিরুপ মন্তব্য করেছেন এবং হতবাক হয়েছেন। বক্তরা বলেন অবিলম্বে মামলাটির অধিকতর তদন্ত করে তদন্তকারী কর্মকর্তা ও অসাধু ঠিকাদার হাসেম আলীর বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যব¯’া গ্রহন করার দাবি জানান।

পিবিআই-এর তদন্ত প্রতিবেদনের সত্যতা প্রত্যাখান করেছেন সাংবাদিকরা
স্টাফ রির্পোটার
প্রধানমন্ত্রীর বরাবরে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের মাধ্যমে দেয়া স্মারকলিপিতে সাংবাদিক খায়রুল আলম রফিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানানো হয়েছে। বুধবার ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব ও বাংলাদেশ অনলাইন সাংবাদিক কল্যাণ ইউনিয়ন (বসকো) মানববন্ধন করে এই স্মারকলিপি প্রদান করে। স্মারকলিপিতে ময়মনসিংহ প্রতিদিনের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মোঃ খায়রুল আলম রফিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়। ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের খাদ্য বিভাগের ঠিকাদার দ্রুত বিচার আইনে মিথ্যা মামলা দেন এবং পুলিশ বুরে‌্যা অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) প্রতিবেদন প্রদান করে। হাসপাতালে ভাংচুরের ঘটনায় মচিমহা কর্তৃপক্ষ কোন মামলা করেনি। অন্যদিকে ঘটনার সাথে সাংবাদিক খায়রুল আলম রফিক কোন ভাবেই জড়িত না থাকলেও পিবিআই প্রতিবেদন প্রদান করেছে। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ পিবিআই-এর তদন্ত প্রতিবেদনের সত্যতা নিয়ে গভীর সন্দেহ ও উদ্বেগ প্রকাশ করেন। অভিযোগ রয়েছে পিবিআই প্রভাবিত হয়ে এই চার্জশীট প্রদান করেছেন। স্মারকলিপিতে যা মিথ্যা ভিত্তিহীন ও রহস্যজনক বলে দাবী করা হয়। স্মারকলিপিতে উল্লেখ্য করা হয় ময়মনসিংহ প্রতিদিন পত্রিকায় মচিমহায় অনিয়ম, দুর্নীতি সর্ম্পকে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার জের ধরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলা দেয়া হয়। দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করায় হাসপাতাল পরিচালক সহ দুর্নীতিবাজ ঠিকাদার হাসিম কর্তৃক প্রভাবিত হয়ে পিবিআই তদন্ত প্রতিবেদন দিয়েছেন। এতে স্বাধীন সাংবাদিকতার বিরুদ্ধে দুর্নীতিবাজদের ষড়যন্ত্র ও শক্তি প্রকাশিত হয়েছে। সাংবাদিক দমন পীড়নে মিথ্যা মামলা হুমকির ফলে ময়মনসিংহে গণমাধ্যম আক্রান্ত হয়েছে। যা সাংবাদিকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনে মারাত্মক ঝুঁিকর সৃষ্টি করেছে। এ অব¯’ায় সাংবাদিক সমাজ ময়মনসিংহ বিভাগের জেলা, উপজেলা মানববন্ধনসহ প্রতিবাদ মুখর হয়েছেন। অবিলম্বে সাংবাদিক খায়রুল আলম রফিকের বিরুদ্ধে দ্রুত বিচার আইনে করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জোরালো দাবী উঠেছে। প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে পিবিআই এর মিথ্যা প্রতিবেদন। সেই সাথে পিবিআই এর প্রভাবিত ও মিথ্যা প্রতিবেদন পুনঃ তদন্তের দাবি জানানো হয়েছে। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ বলেন, পিবিআই এর তদন্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তা গুরুতর। বির্তকিত প্রতিবেদন অধিকতরে তদন্ত করা হলেই আসল ঘটনা বেরিয়ে আসবে। হাসপাতালের দুর্নীতিবাজচক্র পিবিআই এর তদন্তে প্রভাব বিস্তার করায় সাংবাদিক সমাজ উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন স্মারকলিপিতে।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY