রঞ্জন মোদক রনি, কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বলেছেন, সাধারণ মানুষ আইনী সহায়তা নিতে এসে যাতে হয়রানির শিকার না হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তিনি আরও বলেন, ইদানিং অভিযোগ শুনা যায় আইনজীবী মামলার বাদী হলে বিচার প্রার্থী আসামী পক্ষে কোন আইনী সহায়তা পান না। এটি চরম মানবাধিকার লংঘন। ফলে বিচার প্রার্থী যে কেউ আইনী সহায়তা পাওয়া সাংবিধানিক অধিকার। এই অধিকার থেকে কাউকেই বঞ্চিত করা যাবে না। তিনি গতকাল মঙ্গলবার কিশোরগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতি কর্তৃক ২য় বারের মতো রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হওয়ায় তাঁকে দেয়া সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে এ কথা বলেন।
জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাড. এম.এ রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। বক্তব্য রাখেন, জেলা ও দায়রা জজ মুহাম্মদ মাহবুব-উল ইসলাম, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ সহিদুল ইসলাম শহীদ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ জিল্লুর রহমান, এ্যাড. শামছুন নাহার কাজল, এ্যাড. মুফতি জাকির খান প্রমুখ।
রাষ্ট্রপতি অতীতে আইনজীবী থাকার সুখকর স্মৃতি উল্লেখ করে বলেন, আইনজীবীদের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টার মাধ্যমে সমাজের অনাচার দূরীভূত করে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করতে পারেন। আইনের শাসন, মানবাধিকার রক্ষায় আইনজীবীরা সচেষ্ট থাকবেন।
তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ইদানিং প্রায়শই শুনা যায় আইনজীবীগণ তাদের পেশাগত আচরণ করেন না যা দুঃখজনক। তিনি জুনিয়র আইনজীবীদের উদ্দেশ্যে বলেন বিচরাঙ্গনের সুষ্ঠ পরিবেশ রক্ষার দায়িত্ব সকলের। সিনিয়ররা যেমন জুনিয়রদের ¯েœহ করবেন তেমনি জুনিয়রদেরও সেদিকে লক্ষ্য রাখা উচিত।
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, দেশের স্বাধীনতা আন্দোলন থেকে শুরু করে সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে আইনজীবীরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। দেশের উন্নয়নে বর্তমান সরকারকে সার্বিক সহযোগিতা করার আহবান জানান এবং কিশোরগঞ্জ আইনজীবী সমিতিতে আইনজীবীদের বসার জন্য রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ভবন নির্মাণে ১ কোটি টাকা অনুদান ঘোষণা করেন।
পরে রাষ্ট্রপতি জজ কোর্টের নবনির্মিত ৩ তলা ভবনের উদ্বোধন করেন। এছাড়াও আইনমন্ত্রী কিশোরগঞ্জ জজ শীপের সভাকক্ষের উদ্বোধন ও রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

 

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY