খেলাধূলা সংবাদ :  হাথুরুসিংহের ‘পছন্দের ক্রিকেটা’র সৌম্য সরকার। বাংলাদেশ ক্রিকেটাঙ্গনে এমন অলিখিত একটা কথা প্রচলিত অনেক দিন ধরেই। মঙ্গলবার সৌম্যর কাছে ব্যাপারটি তুলতেই তীব্র আপত্তি করলেন।

হাথুরুর আমলের সার্বিক পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করতে যেয়ে তিনি বলেন, ‘আমি যদি ভাল খেলি আমি দলে থাকব। কে পছন্দ করেন না করে এইগুলা তো জানি না। অনেক মানুষেরই কথা থাকতে পারে। কারণ একটা ক্লাসে স্যার সবাইকে পছন্দ করে না। যারে পছন্দ করে না, সে পেছনে গিয়ে লাগতেই পারে। আমি যদি ভাল না খেলতাম আমি টিমেও আসতাম না, আমাকে কেউ পছন্দও করত না। আমি যদি স্কুলেই ভর্তি না হই কেউ কিভাবে আমাকে পছন্দ করবে। স্কুলে ভর্তি হওয়ার জন্য তো আমাকে পরীক্ষা দিতেই হবে। পরীক্ষায় যখন ভাল করেছিলাম তখন কোচ পছন্দ করছে।’

২০১৭ সাল সৌম্যর মোটেও ভাল যায়নি। ছন্দে ফেরার লড়াই করতে করতে কেটেছে বছর। নতুন বছর নিয়ে তার আশা, ‘এ বছর আমার চাওয়া পূরণ হয়নি। চেষ্টা করব, ২০১৮তে নিজের লক্ষ্যে যেন পৌঁছাতে পারি। সব মানুষের চাওয়া সবসময় পূরণ করা যায় না। নিজে খুশি হতে পারলে মানুষও খুশি হতে পারবে। আমি সেটাই চাই।’

ত্রিদেশীয় ও শ্রীলঙ্কা সিরিজ সামনে রেখে বাংলাদেশ দলের প্রাথমিক স্কোয়াডে থাকা ৩২ ক্রিকেটারকে নিয়ে বুধবার শুরু হচ্ছে অনুশীলন ক্যাম্প। তার আগে মঙ্গলবার বিসিবি একাডেমি মাঠের নেটে ব্যাটিং অনুশীলন করেছেন সৌম্য। পরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বলেন, ‘বছর শুরুর সিরিজটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা ভাল করতে পারলে দল অনেক উজ্জীবিত হয়ে উঠবে।’

 

জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারিতে ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ। শ্রীলঙ্কা সিরিজে বাংলাদেশের অদৃশ্য প্রতিপক্ষ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। শ্রীলঙ্কার হেড কোচ হিসেবে প্রথম অ্যাসাইনমেন্টে বাংলাদেশে আসবেন তিনি। এতে দুশ্চিন্তার কিছু দেখছেন না সৌম্য।

‘তিনি আমাদের সম্পর্কে বেশি জানেন বলে বেশি দিতে চাইবেন। বেশি দিতে গেলে হয়তবা অনেকেই সেটা পূরণ করতে পারবেন না। বেশি জানলেও সমস্যা। তিনি তো আর খেলবেন না, খেলবেন খেলোয়াড়রা। আমরা আধিপত্য বিরাজ করতে পারলে ফল আমাদের দিকেই আসবে। আর এটার জন্য আমরাও নিশ্চয়ই পরিকল্পনা করব। তিনি কী পরিকল্পনা করতে পারেন তা আমরাও জানি।’

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY