জাতীয় সংবাদ :  অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনায় জড়িত হজ এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া ও লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ করেছে বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। অভিযুক্ত ১৮টি হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করার ঘোষণার সময়ই এ সুপারিশ করেছে কমিটি।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব হাফিজুর রহমান আজ সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান। মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে মুহাম্মদ ফারুক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় কমিটির সদস্য বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, নজরুল ইসলাম চৌধুরী, কামরুল আশরাফ খান, রওশন আরা মান্নান এবং সাবিহা নাহার অংশ নেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি ফারুক খান এমপি জাগো নিউজকে বলেন, এবার অনেক হজ এজেন্সি প্রতারণা করেছে। এতে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে। ভিসা পেয়েও ৩৬৭ জন হজে যেতে পারেননি।

তিনি বলেন, তাদের মধ্যে ৯৮ জন ১৮টি হজ এজেন্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। এসব হজ এজেন্সির লাইসেন্স বাতিলসহ কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেছে সংসদীয় কমিটি। এ ছাড়া ধর্ম মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ বিমানকেও এ বিষয়ে আরও সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

কমিটি আগামী হজ মৌসুমে এজেন্টগুলোর কাছ থেকে সম্পূর্ণ টাকা আদায় সাপেক্ষে বাংলাদেশ বিমানের টিকিট বুকিং কনফার্ম করার সুপারিশ করেছে। এ ছাড়া এবারের হজ মৌসুমে অব্যবস্থাপনার জন্য দায়ী এজেন্সিগুলোকে জরিমানারও সুপারিশ করেছেন কমিটির সদস্যরা।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY